নিউইর্য়কের বিএমএমসিসি ইসলামিক স্কুলের ভার্চুয়াল গ্র্যাজুয়েশন সম্পন্ন

0

প্রবাস ডেস্ক : নিউইর্য়কের ব্রুকলীনের বায়তুল মা’মুর মসজিদ এন্ড কমাউনিটি সেন্টারের আওতাধীন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান “বিএমএমসিসি ইসলামিক স্কুল এর সামার প্রোগ্রাম”এর সমাপনী অনুষ্ঠান বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে সম্পন্ন হয়েছে।

গত রবিবার (১৩ সেপ্টেম্বর) সকাল এগারোটায় ভার্চুয়ালে অনুষ্ঠিত উক্ত গ্র্যাজুয়েশন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিএমএমসিসি ইসলামিক স্কুলের প্রিন্সিপাল রশীদ আহমদ।ইসলামিক স্কুলের হিফজ বিভাগের শিক্ষক হাফেজ আলী আকবর এর কুরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়।

সিনিয়র শিক্ষক মাওলানা মমতাজুল করীম ও হাফেজ আলী আকবর এর যৌথ উপস্থাপনায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ ও শিক্ষাবিদ আবু আহমদ নুরুজ্জামান। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কুরআন একাডেমী ফর ইয়াং স্কলার এর প্রিন্সিপাল, শিক্ষাবিদ আহমদ আবু উবায়দা, বিএমএমসিসির সেক্রেটারী জেনারেল মোশাররাফুল মাওলা সুজন,বায়তুন নূর মসজিদ এর ইমাম ও খতীব মাওলানা বেলাল হোসাইন।

শিক্ষক-শিক্ষিকাদের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন মাওলানা মাহমুদুল হাসান ও সুফিয়া খানম ইমু, স্কুলের শিক্ষক মাওলানা মঈনুদ্দীন সুজন, মাওলানা আমিনুর রহমান, মাওলানা ফয়জুল্লাহ মাসুম, মাওলানা আবদুল মন্নান, আলেয়া বেগম সুমি, সিস্টার ইনতেসার সালাহ, জেসমীন আক্তার ও মাসুমা ইয়াসমীন ভার্চুয়েল গ্র্যাজুয়েশন প্রোগ্রাম উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়াও বিপুল সংখ্যক অভিভাবক জুমে অংশগ্রহণ করেন। অনুষ্ঠানে ক্লাস ভিত্তিক বিভিন্ন বিষয়ের উপর প্রতিযোগীতাও অনুষ্ঠিত হয়। ক্লাস ভিত্তিক ১ম থেকে ৭ম গ্রেড পর্যন্ত এবং হিফজ শাখার দু’টি গ্রুপের মধ্যে প্রথম,দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থান অধিকারী ২৭জন ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে সনদ ও পুরস্কার বিতরণের ঘোষণা প্রদান করা হয়।

প্রধান অতিথি আবু আহমদ নুরুজ্জামান বলেন, প্রবাসে ইসলামকে বুঝা বা শেখার জন্য আমাদের সন্তানদের জন্য ইসলামিক স্কুলের বিকল্প নেই। একইসঙ্গে পারিবারিকভাবেও কোরআন ও হাদিসের বিষয়গুলো গুরুত্ব দিতে হবে এবং তাদেরকে কুরআনের ধারক ও বাহক হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। সামার স্কুল থেকে শিক্ষা নেয়ার পর ইসলামের মৌলিক বিষয়ের চর্চা অব্যাহত রাখতে হবে।

তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের খাওয়ারের ব্যপারে হালাল হারাম শিখানো হয়েছে তা তাদের বাস্তব জীবনে প্রয়োগ করতে হবে। মা-বাবাদেরও হারাম হালালের জ্ঞান থাকতে হবে, সে অনুযায়ী বাচ্চাদের খাবার পরিবেশন হবে।তিনি আরো বলেন,নতুন প্রজন্মকে আরো বেশী বেশী কুরআন-সুন্নাহর জ্ঞান অর্জনে মনোনিবেশ করতে হবে।কেননা ঐ কুরআনিক জ্ঞানই পারে মানুষকে সঠিক ও সত্য পথের পথ দেখাতে।

বিশেষ অতিথি কুরআন একাডেমী ফর ইয়াং স্কলার এর প্রিন্সিপাল,শিক্ষাবিদ আহমদ আবু উবায়দা উপস্থিত অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনাদের সকলের আরো সহযোগিতা অব্যাহত থাকলে বিএমএমসিসি একদিন নিউইয়র্কের নামকরা বিদ্যাপীঠে পরিণত হবে ইনশা আল্লাহ।তিনি বিএমএমসিসি ইসলামিক স্কুল ও কুরআন একাডেমী ফর ইয়াং স্কলার প্রতিষ্ঠান সমূহের কামিয়াবী কামনা করেন।

প্রিন্সিপাল রশীদ আহমদ বলেন, কোভিট-১৯ এর এই গ্লোবাল মহামারির মধ্যেও আমরা আমাদের শিক্ষার কার্যক্রম বন্ধ করিনি। আমাদের একটাই উদ্দেশ্য, যেন আগামী প্রজন্ম ঘরে বসেও দ্বীন শিখতে পারে এবং ইসলামের আলোকে জীবন গঠন করতে পারে।তিনি অভিভাবকদের উদ্দেশ্য বলেন, আপনাদের সন্তানেরা যেন নির্দিষ্ট সময়ে অনলাইন ক্লাসে অংশগ্রহণ করে এবং দৈনন্দিন হোমওয়ার্ক ঠিকমতো করে,সেই বিষয়ে আরো বেশী দেখভাল করা তাতে শিক্ষার মানোন্নয়ন বৃদ্ধি পায়।

ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  

Comment

Share.