ফাহিম সালেহ হত্যার অভিযোগে সাবেক সহকারী গ্রেফতার

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : পাঠাওয়ের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ফাহিম সালেহকে হত্যার অভিযোগে তার সাবেক ব্যক্তিগত সহকারী টাইরিস ডেভন হ্যাসপিলকে গ্রেফতার করেছে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক পুলিশ।

শুক্রবার (১৭ জুলাই) আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম নিউইয়র্ক টাইমস এই তথ্য দিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। জানা গেছে, শুক্রবারই ২১ বছর বয়সী হ্যাসপিলকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। ফাহিম সালেহ হত্যার ঘটনায় সন্দেহভাজনের তালিকায় তার নাম রয়েছে।

ফাহিম সালেহর কাছ থেকে এর আগে ১ কোটি টাকা চুরি করে হ্যাসপিল। বিষয়টি ফাহিম বুঝতে পেরেও নিউ ইয়র্ক পুলিশকে না জানিয়ে তাকে টাকা পরিশোধের সময় বেধে দিয়েছিলেন। এ কারণেই তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করছে পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, শুক্রবারই হ্যাসপিলের বিরুদ্ধে আদালতে অনুষ্ঠানিক অভিযোগ আনা হতে পারে।

এর আগে মঙ্গলবার (১৪ জুলাই) নিউইয়র্ক ম্যানহাটন এলাকার নিজ অ্যাপার্টমেন্ট থেকে ফাহিমের ক্ষত-বিক্ষত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। যুক্তরাষ্ট্রের বেন্টলি বিশ্ববিদ্যালয়ে ইনফরমেশন সিস্টেম নিয়ে পড়াশোনা করতেন তিনি।

পুলিশের বরাত দিয়ে ডেইলি নিউজ জানিয়েছে, মঙ্গলবার সারাদিন ভাইয়ের দেখা না পেয়ে ৯১১ নম্বরে ফোন করেন ফাহিমের বোন। এরপর নিউইয়র্ক ম্যানহাটন এলাকার নিজ অ্যাপার্টমেন্ট থেকে ফাহিমের টুকরা করা মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। ইলেকট্রিক করাত দিয়ে মৃতদেহ থেকে হাত, পা ও মাথা বিচ্ছিন্ন করা হয়।

ওই অ্যাপার্টমেন্টের সিসি ক্যামেরা থেকে দেখা গেছে, ১৩ জুলাই নিজ অ্যাপার্টমেন্টে যাওয়ার জন্য লিফটে উঠছেন ফাহিম। এ সময় স্যুট পরা, হাতে গ্লাভস ও মুখে মাস্ক পরা একজনকে তার পেছনে যেতে দেখা গেছে। এরপরই হয়তো ফাহিমকে হত্যা করা হয়। ওই ব্যক্তিকে পেশাদার হত্যাকারী হিসেবে সন্দেহ করা হচ্ছে।

পেশায় ওয়েব ডেভেলপার ছিলেন ফাহিম। বাংলাদেশে পাঠাও কোম্পানিতে নিজের শেয়ার বিক্রি করে নাইজেরিয়াতে একই ধরনের ব্যবসা শুরু করেছিলেন তিনি। তবে গত জানুয়ারিতে নাইজেরিয়ায় ‘গোকাডা’ নামের কোম্পানিটি সরকারি নিষেধাজ্ঞায় পড়ে।

ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  

Comment

Share.