বন্যাদুর্গতরা মানবেতর জীবন যাপন করছে : ইসলামী আন্দোলন

0

কওমিকণ্ঠ ডেস্ক : করোনা মহামারীর অজুহাতে সরকারের কাছে এখন বন্যাদুর্গতরা চরম উপেক্ষিত। কাঙ্খিত সাহায্য সহযোগিতা না পেয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে বন্যাদুর্গতরা। বন্যা পরিস্থিতি মোকাবিলায় দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় একেবারে দায়িত্বহীনতার পরিচয় দিচ্ছে বলেছেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মহাসচিব প্রিন্সিপাল হাফেজ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ, যুগ্ম মহাসচিব অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান ও মাওলানা গাজী আতাউর রহমান।

আজ (২২ জুলাই) বুধবার বিকালে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ এসব কথা বলেন।

নেতৃবৃন্দ বলেন, জরুরি ভিত্তিতে বন্যাকবলিত এলাকায় সরকারি ত্রাণ তৎপরতা পরিচালনা করে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষকে বাঁচাতে হবে।করোনা দুর্যোগের মধ্যে বানভাসি লাখ লাখ পরিবারের দুর্ভোগ ও দুর্গতি চরমে উঠেছে। খাদ্যহীন ও আশ্রয়হীন কোটি মানুষের দুর্দশা মারাত্মক আকার ধারণ করেছে। বন্যায় সহায় সম্পদ হারিয়ে বানভাসিদের মধ্যে নিদারুণ হাহাকার দেখা দিয়েছে। মহামারী মোকাবেলায় নাকাল সরকারের কাছে বন্যা দুর্গত কোটি মানুষ উপেক্ষিত থেকে যাচ্ছে। তারা বলেন, অধিকাংশ বন্যা দুর্গত জেলায় ৮০ থেকে ৯০ শতাংশ মানুষের কাছে খাদ্য, ত্রাণ সামগ্রী, নগদ অর্থ প্রভৃতি কিছুই পৌঁছেনি। লক্ষ লক্ষ পরিবার অর্ধাহাওে অনাহারে দিন কাটাচ্ছে। বন্যায় ফসলহানির কারণে আগামী দিনগুলো তাদের জন্য দুঃস্বপ্ন হয়ে দেখা দিয়েছে। এমতবাস্থায় সরকারের ত্রাণ তৎপরতার পাশাপাশি সংগঠনের নেতাকর্মীসহদেশের বিত্তবান ও সাহায্য সংস্থাকেও এগিয়ে আসতে হবে।

নেতৃবৃন্দ বলেন, অপরদিকে ভারি বৃষ্টিপাতে রাজধানীতে ব্যাপক পানিবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। এতে সীমাহীন ভোগান্তিতে পড়েছেন নগরবাসী। কয়দিন থেকে শুরু হওয়া বৃষ্টিতে ঢাকার প্রধান প্রধান সড়কসহ সারাদেশ পানিতে তলিয়ে গেছে। ঢাকাসহ পুরো দেশ অনেকটা নাকাল অবস্থা। বেড়িবাঁধের নামে হাজার হাজার কোটি টাকা লুটপাট ও দুর্নীতির ফলে মানুষের সীমাহীন কষ্ট। এ থেকে জাতি মুক্তি চায়।

ভালো লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  

Comment

Share.